ইরানের হাতে আটক তেলবাহী জাহাজ মুক্ত করতে বৈশ্বিক প্রচেষ্টার আহ্বান গ্রীসের



গ্রীসের সাথে চলমান বিবাদে ইরানের হাতে আটক দুইটি তেলবাহী জাহাজ ও সেগুলোর নাবিকদের মুক্ত করতে বৃহস্পতিবার বিশ্বব্যাপী উদ্যোগের আহ্বান জানিয়েছে গ্রীসের সরকার ও দেশটির শিপিং শিল্প।

নৌবাণিজ্য মন্ত্রী ইয়োয়ান্নিস প্লাকিওটাকিস সংবাদকর্মীদের বলেন, “এই অগ্রহণযোগ্য ঘটনার অবসান ঘটাতে এবং এমন যেন আর না ঘটে তা নিশ্চিত করতে কাজ করার জন্য আমরা সকল দেশের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”

ইরানের রেভোলিউশনারী গার্ডস শুক্রবার গ্রীসের পতাকাবাহী এই দুই তেলবাহী জাহাজকে পারস্য উপসাগর থেকে আটক করে। এপ্রিলে এক রুশ তেলবাহী জাহাজ থেকে জব্দ করা ইরানি তেল যুক্তরাষ্ট্রকে সরবরাহ করা হবে বলে, গ্রীস ঘোষণা দেওয়ার মাত্র কয়েকদিন পরই এমন ঘটনা ঘটল।

গ্রীসের উপকূলরক্ষীবাহিনী বৃহস্পতিবার জানায় যে, উভয় জাহাজই ইরানের বান্দার বন্দরে নোঙর করা অবস্থায় রয়েছে।

জাহাজ দুইটিতে্ গ্রীসের নয়জন এবং সাইপ্রাসের একজন নাগরিক রয়েছেন বলে উপকূলরক্ষীবাহিনী শনাক্ত করেছে। তবে, অন্যান্য নাবিকদের নাগরিকত্ব নিয়ে কোনও তথ্য দেওয়া হয়নি।

ইরান জানিয়েছে যে, তেলবাহী জাহাজ দুইটির নাবিকরা “সুস্বাস্থ্যে” রয়েছেন এবং তাদের গ্রেফতার করা হয়নি।

রেভোলিউশনারী গার্ডস জানায় যে “নিয়ম ভঙ্গের দায়ে” তারা জাহাজ দুইটিকে আটক করেছে। তবে আর বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। রেভোলিউশনারী গার্ডস ইরানের সামরিক বাহিনীর আদর্শভিত্তিক একটি শাখা ।

ইরানের ঐ দুই জাহাজ আটকের সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছে গ্রীস। তারা এটিকে “জলদস্যুতার সমতুল্য” হিসেবে আখ্যায়িত করেছে এবং নিজেদের নাগরিকদের ইরানে সফর না করতে সতর্ক করেছে।

জার্মানী এবং ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রকও পৃথক পৃথক বিবৃতিতে, এই জাহাজ আটককে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন বলে ব্যাখ্যা করে সেটির প্রতি নিন্দা জানিয়েছে। তারা জাহাজ দুইটি ও সেগুলোর নাবিকদের অবিলম্বে ছেড়ে দেওয়ার জন্য ইরানের প্রতি আহ্বান জানায়।

যুক্তরাষ্ট্রও তেলবাহী এই দুই জাহাজের আটকের প্রতি কঠোর নিন্দা জানিয়েছে এবং অবিলম্বে সেগুলোর মুক্তি দাবি করেছে।

ইরান বিবৃতিগুলোকে “একপাক্ষিক” এবং “অসঙ্গত হস্তক্ষেপ” হিসেবে ব্যাখ্যা করে।



Source link

maria

এই যে, এই প্রবন্ধ পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ. আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার, 10 বছর ধরে লিখছি, এবং একজন প্রযুক্তি প্রেমী।