উত্তর কোরিয়ার নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে একটি ‘খুব পরিচিত’ মুখ



উত্তর কোরিয়ার নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একজন কঠোর কথা বলার অভিজ্ঞ নারী কূটনীতিক, যিনি অনর্গল ইংরেজি বলতে পারেন এবং যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য প্রধান শক্তিধর রাষ্ট্রের সাথে আলোচনার কয়েক দশকের অভিজ্ঞতা রয়েছে ৷

শনিবার সে দেশের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম চো সন হুই-এর পদোন্নতি ঘোষণা করেছে, যিনি উত্তর কোরিয়ার প্রথম নারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং এর ইতিহাসে সর্বোচ্চ পদমর্যাদার মহিলা কর্মকর্তাদের একজন।

এটা স্পষ্ট নয় যে চোয়ের পদোন্নতি – যা পিয়ংইয়ংয়ে একটি বড়, বহুদিনের রাজনৈতিক বৈঠকের সময় এসেছে, তা যুক্তরাষ্ট্রের দিকে উত্তর কোরিয়ার দৃষ্টিভঙ্গির একটি বিস্তৃত পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিচ্ছে কী না।

উত্তর কোরিয়া ২০১৯ সালে পারমাণবিক আলোচনা থেকে দূরে সরে গেছে। দেশটি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের কয়েকবারের আলোচনার আমন্ত্রণ উপেক্ষা করেছে।

পরিবর্তে, উত্তর কোরিয়া এই বছর ৩১টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে, যা ২০১৯ সালে ২৫টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের আগের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি সংস্থা এই সপ্তাহে বলেছে, এমন লক্ষণও রয়েছে যে উত্তর কোরিয়া আরেকটি পারমাণবিক পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়া উত্তেজনার বিগত সময়কালে, চো, নরম পন্থা নিয়েছিলেন । তার কর্মজীবনের বিভিন্ন সময়ে, বিশ্লেষকরা বলেছেন যে তার এই পদোন্নতি ওয়াশিংটনের সাথে কথা বলতে উত্তর কোরিয়ার ইচ্ছার প্রতিফলন।

তবে, উত্তর কোরিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী চো ইয়ং রিমের কন্যা “চো”য়ের স্পষ্ট কথা বলার জন্যও খ্যাতি রয়েছে।



Source link

maria

এই যে, এই প্রবন্ধ পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ. আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার, 10 বছর ধরে লিখছি, এবং একজন প্রযুক্তি প্রেমী।