বেইজিং-এ একজন কোভিড বিধি ভঙ্গ করায় হাজার হাজার মানুষ কোয়ারেন্টিনে



বেইজিং-এ এক ব্যক্তির খামখেয়ালিতে হাজার হাজার মানুষ এখন কোয়ারেন্টিনে। ওই ব্যক্তি বাড়িতে থাকার আদেশ উপেক্ষা করেছিলেন এবং পরবর্তীতে তার কোভিড পজিটিভ ধরা পড়ে, যার ফলে পুলিশ তদন্তে নামে।

কোভিডের প্রাদুর্ভাব শুরু হবার পর বেইজিং-এ বৃহত্তম করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব রোধ করতে চীনের রাজধানীতে গত ৫ সপ্তাহে হাজার হাজার বাসিন্দাকে বাড়িতে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কর্মকর্তারা বলেছেন, ৪০-এর কাছাকাছি বয়সী সান নামের এক ব্যক্তি একটি উঁচু ঝুঁকিপূর্ণ শপিং সেন্টারে যাওয়ার পর তাকে আলাদা থাকতে বলা হলেও সে বিধি অনুসরণ করতে ব্যর্থ হয়।

পরবর্তীতে সান এবং তার স্ত্রীর করোনা পজিটিভ আসে যার ফলে কর্তৃপক্ষ তাদের ৫ হাজার প্রতিবেশীকে বাড়িতে লকডাউন করে ২৫০ জনকে একটি সরকারি কোয়ারেন্টিন কেন্দ্রে পাঠায়।

সোমবার বেইজিং-এ করোনার বিধিনিষেধ শিথিল হতে শুরু হওয়ার পর এ ঘটনা ঘটে। কর্তৃপক্ষ পার্ক, যাদুঘর এবং সিনেমাহল পুনরায় চালু করেছে এবং প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণের ঘোষণা দিয়েছে।

ক্রমবর্ধমান ক্লাস্টারগুলো বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য কঠোর লকডাউন, গণ পরীক্ষা এবং দীর্ঘ কোয়ারেন্টিন কার্যকর করার মাধ্যমে চীন জিরো কোভিড কৌশল পালনে অঙ্গীকারাবদ্ধ।

লকডাউনের নিয়ম ভঙ্গ করার জন্য কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা রয়েছে এবং সান এখন পুলিশী তদন্তের অধীন।

এপ্রিলের শেষ থেকে বেইজিং-এ ১৭শর বেশি ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ ধরা পড়েছে- বৈশ্বিক মান অনুসারে এটি ক্ষুদ্র সংখ্যা কিন্তু করোনা ভাইরাসের প্রতি চীনের কঠোর পদ্ধতির জন্য সমস্যাজনক।

গত সপ্তাহে সংক্রমণের হার দ্রুত হ্রাস পেয়েছে।



Source link

maria

এই যে, এই প্রবন্ধ পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ. আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার, 10 বছর ধরে লিখছি, এবং একজন প্রযুক্তি প্রেমী।