বেসামরিক নাগরিকদের উপর গোলাবর্ষণের জন্য ২ রুশ সৈন্যকে সাজা দিয়েছে ইউক্রেনের আদালত



গত সপ্তাহে রাশিয়ার সীমান্তের ওপার থেকে খারকিভ অঞ্চলে বেসামরিক লক্ষ্যবস্তুতে নির্বিচারে গোলাগুলি চালানোর অপরাধে দোষ স্বীকার করার পর, ইউক্রেনের একটি আদালত মঙ্গলবার রাশিয়ার দুইজন সৈন্যকে সাড়ে এগারো বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেছে।

আলেকজান্ডার ববিকিন এবং আলেকজান্ডার ইভানভ উত্তর-পূর্ব ইউক্রেনের কোটেলভা জেলা আদালতে একটি শক্ত কাঁচের বাক্সের ভেতরে দাঁড়িয়ে এই রায় শুনছিলেন।

ইউক্রেনের একটি পতাকার সামনে দাঁড়িয়ে বিচারক ইভেন বলিবোক বলেন, “ববিকিন এবং ইভানভের অপরাধ পুরোপুরি প্রমাণিত হয়েছে।”

বাদি পক্ষের আইনজীবিরা এই দ্বিতীয় যুদ্ধাপরাধের মামলায় রুশ সৈন্যদের জন্য ১২ বছরের সাজার মেয়াদ চেয়েছিলেন। বিবাদি পক্ষের আইনজীবীরা বলেছেন, শাস্তি আট বছর হওয়া উচিত, কারণ এই দু’জন দোষ স্বীকার করে, অনুশোচনা প্রকাশ করেছিল এবং যুক্তি দিয়েছিল যে, তারা রাশিয়ার বেলগোরোড এলাকা থেকে লক্ষ্যবস্তুতে গ্র্যাড ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করার সময় কেবল আদেশ পালন করেছিল।

তাদের সাজা হওয়ার পরে, দু’জনকেই জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে, তারা তাদের সাজা ন্যায়সঙ্গত বলে মনে করেছে কিনা, এবং উভয়েই হ্যাঁ বলেছিল। তারপর কালাশনিকভ রাইফেলে সজ্জিত রক্ষীরা দু’জনকে হাতকড়া পরিয়ে আদালতের বাইরে নিয়ে যায়।

এর আগে, গত সপ্তাহে, একজন নিরস্ত্র বেসামরিক নাগরিককে হত্যার জন্য, একজন রুশ সৈন্যকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

ইউক্রেন গত তিন মাসে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধের সময় হাজার হাজার যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ করেছে, যদিও মস্কো বেসামরিক মানুষকে তাদের লক্ষ্যবস্তু করার কথা অস্বীকার করে আসছে।

[ এই প্রতিবেদনের কিছু উপাদান রয়টার্স এবং এএফপি থেকে নেয়া ]



Source link

maria

এই যে, এই প্রবন্ধ পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ. আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার, 10 বছর ধরে লিখছি, এবং একজন প্রযুক্তি প্রেমী।