মিত্র দেশগুলো ইউক্রেনে সামরিক সহায়তা বিষয়ে আলোচনা করবে



যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী লয়েড অস্টিন বুধবার নেটো সদস্য রাষ্ট্র এবং বিশ্বের অন্যান্য অংশ থেকে তাদের মিত্র রাষ্ট্রসমূহের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদের একটি বৈঠকের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। বৈঠকে প্রায় ৪ মাসের রুশ আক্রমণের মুখে ইউক্রেনে সামরিক সহায়তা বৃদ্ধির জন্য তাদের সর্বশেষ প্রচেষ্টা নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে।

ব্রাসেলসে নেটো সদর দপ্তরে নেটোর প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের বৈঠকের ফাঁকে এই আলোচনা হচ্ছে।

পর্যাপ্ত সামরিক সহায়তা দ্রুততর সময়ের মধ্যে আসেনি- ইউক্রেনের কর্মকর্তাদের এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে স্টলটেনবার্গ বলেছেন, এ ধরনের প্রচেষ্টা সময়সাপেক্ষ তবে নেটো নেতারা আশু প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে এবং সীমাবদ্ধতাগুলো অতিক্রম করতে ইউক্রেনের সাথে কাজ করছে।

নেটো মহাসচিন জেন্স স্টলটেনবার্গ আরও বলেছেন, তিনি আশা করেন নেটো মিত্ররাও বুধবার ইউক্রেনের জন্য নতুন সহায়তার ঘোষণা দেবেন।

রুশ বাহিনী ডনবাস অঞ্চলে অবস্থিত পূর্বাঞ্চলের শিল্প নগরী সিভিরোডনেটস্কের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ অর্জনের জন্য তীব্র আক্রমণ করলে আলোচনাগুলো সামনে আসে। এলাকাটিকে রাশিয়া ইউক্রেনে তাদের অপারেশনের প্রধান কেন্দ্র হিসেবে ঘোষণা করেছে।

ধীরগতিতে হলেও ক্রমাগত রাশিয়া ডনবাস অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার লড়াইয়ে আধিপত্য বিস্তার করছে বলে মনে হচ্ছে । এ অঞ্চল ইউক্রেনের লুহানস্ক এবং ডনেটস্ক প্রদেশ ঘিরে রেখেছে। প্রদেশ দুটিকে রাশিয়া স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

রাশিয়া ২০১৪ সালে ইউক্রেনের ক্রাইমিয়া উপদ্বীপ দখল করে নেয় এবং কিয়েভের বাহিনী তখন থেকে ডনবাস অঞ্চলে রাশিয়াপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সাথে লড়াই করছে।



Source link

maria

এই যে, এই প্রবন্ধ পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ. আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার, 10 বছর ধরে লিখছি, এবং একজন প্রযুক্তি প্রেমী।