যুক্তরাষ্ট্রে মেমোরিয়াল ডে পালনকালে নিহত যোদ্ধাদের স্মরণ করার আহ্বান জানালেন বাইডেন



যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সোমবার আর্লিংটন ন্যাশনাল সেমিটারিতে মেমোরিয়াল ডে পালন করেছেন। এ সময় তিনি দিবসটিকে একটি “পবিত্র আচার” বলে অভিহিত করেছেন, যা আমেরিকার সামরিক বাহিনীতে কাজ করার সময় নিহত হওয়া সেইসব পুরুষ ও নারীর আত্মত্যাগের প্রতিফলনকে স্মরণ করিয়ে দেয়।

যুক্তরাষ্ট্রে, প্রতি বছর মে মাসের শেষ সোমবার মেমোরিয়াল ডে পালন করা হয়। দিনটি যেসব সেনা সদস্য সামরিক বাহিনীতে থাকাকালীন অবস্থায় নিহত হয়েছেন, তাঁদের সম্মান জানানোর জন্য বিশেষ একটি দিন। এদিন অনেক আমেরিকান, যুদ্ধের স্মৃতিসৌধ বা কবরস্থান পরিদর্শন করেন এবং তাঁদের কবরে ফুল দিয়ে সরকারি ছুটির দিনটিকে উদযাপন করেন।

বাইডেন বলেন, দিনটি ছিল তার পুত্র ও একজন সামরিক কর্মকর্তা বিউ বাইডেনের মৃত্যুর সপ্তম বার্ষিকী। তিনি বলেন, যদিও বিউ ক্যান্সারে মারা গিয়েছিলেন, কর্তব্যকালীন অবস্থায় নয়, তবু “প্রতি বছর মেমোরিয়াল ডে-তে, আমি তাকে দেখি।”

তিনি বলেন, আমেরিকান সৈন্যরা গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করে যাচ্ছে— “আজ, গণতন্ত্র এবং স্বাধীনতার জন্য বহু বর্ষ ধরে সংগ্রামে, ইউক্রেন এবং এর জনগণ তাদের জাতিকে বাঁচানোর জন্য সামনের সারিতে লড়াই করছে। কিন্তু তাদের এই লড়াই একটি বৃহত্তর লড়াইয়ের অংশ, যা সমস্ত মানুষকে একত্রিত করে … এই লড়াই গণতন্ত্র এবং স্বৈরাচারের মধ্যে লড়াই, দমন পীড়নের সাথে স্বাধীনতার লড়াই।”

সমাধিস্থলে থাকাকালীন, প্রেসিডেন্ট বাইডেন এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট কামালা হ্যারিস, যারা যুদ্ধে মারা গেছে, কিন্তু তাঁদের দেহাবশেষ সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি, সেই সব অজানা সৈনিকদের সম্মান জানাতে, তাঁদের সমাধিতেও পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

ওয়াশিংটনে, মহামারীজনিত কারণে দুই বছরের বিরতির পর, মেমোরিয়াল ডে প্যারেড সোমবার কন্সস্টিউশন এভিনিউতে আবার ফিরে এলো।

মোটরসাইকেল চালকদের বর্ণাঢ্য র‌্যালি রাজধানীতে মেমোরিয়াল ডে পালনের একটি নিয়মিত বৈশিষ্ট্য।

অনেক আমেরিকান পরিবারও মেমোরিয়াল ডে-তে জড়ো হয় এবং পিকনিক করে, কারণ দিনটি যুক্তরাষ্ট্রে গ্রীষ্মের ঋতুর শুরু হিসাবে ব্যাপকভাবে স্বীকৃত।



Source link

maria

এই যে, এই প্রবন্ধ পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ. আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার, 10 বছর ধরে লিখছি, এবং একজন প্রযুক্তি প্রেমী।