সঞ্চয়পত্রের নতুন নিয়ম ২০২২

সঞ্চয়পত্র কী?

সঞ্চয়পত্র সেভিংস সার্টিফিকেট বা সেভিংস ইন্সট্রুমেন্টস নামেও পরিি ত। সঞ্চয়পত্র হলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক পরি ালিত একটি বিনিয়োগ প্রকল্প যা হতে সময়ে সময়ে (মাসিক/‣ত্রমাসিক/মেয়াদান্তে) মুনাফা এবং মেয়াদান্তে আসল পরিশোধ করা হয়ে থাকে।

সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে বিক্ষিপ্তভাবে থাকা জনগণের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় একত্রিতকরণের ফলে সরকারের ঘাটতি বাজেট অর্থায়নে সহায়ক হয়। এছাড়াও, দেশের স্বল্প আয়ের জনগণের মধ্যে সঞ্চয়ের প্রবণতা বৃদ্ধি, দেশের বিশেষ জনগোষ্ঠী

যেমন- মহিলা, বয়োজ্যেষ্ঠ নাগরিক, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্ম ারী, শারীরিক প্রতিবন্ধী ও সমাজের অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতায় আনয়ন, ক্সবদেশিক নির্ভরতা হ্রাস এবং মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে সঞ্চয়পত্র একটি গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ ঝুঁকিমুক্ত বিনিয়োগ হিসাবে বিবে না করা হয়ে থাকে।

বর্তমানে কয়টি সঞ্চয়পত্রের প্রকল্প চালু রয়েছে, কি কি এবং উক্ত সঞ্চয় প্রকল্পসমূহের মেয়াদ কত?

  • ৪টি। যথা ঃ-
  • পাঁচ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র, মেয়াদ- ৫(পাঁচ) বছর;
  • পরিবার সঞ্চয়পত্র, মেয়াদ- ৫(পাঁচ) বছর ;
  • তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্র, মেয়াদ- ৩ (তিন) বছর ও
  • পেনশনার সঞ্চয়পত্র, মেয়াদ- ৫(পাঁচ) বছর ।

সঞ্চয়পত্র কোথায় কিনতে পাওয়া যায় এবং সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের যোগ্যতা

কোথায় সঞ্চয়পত্র কিনতে পাওয়া যায়?

উঃ ৪টি প্রতিষ্ঠান হতে সঞ্চয়পত্র কিনতে পাওয়া যায়।
ক. বাংলাদেশ ব্যাংকের সকল অফিস (সদরঘাট ও ময়মনসিংহ অফিস ব্যতীত);
খ. শরীয়াহ ভিত্তিক ব্যাংক ব্যতীত সকল তফসিলি ব্যাংক;
গ. জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তরের অধীনস্থ সকল সঞ্চয় ব্যুরো অফিস এবং
ঘ. ডাকঘরসমূহে (চড়ংঃ ঙভভরপব)।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সঞ্চয়পত্র উল্লিখিত সব প্রতিষ্ঠান থেকে কি কিনতে পাওয়া যায়?

না। সঞ্চয়পত্রের প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ সংক্রান্ত কার্যক্রম শুধুমাত্র জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তরের আওতাধীন ‘সঞ্চয় ব্যুরো’
কর্তৃক পরিচালিত হয়।

সঞ্চয়পত্র কারা ক্রয় করতে পারেন?

সঞ্চয়পত্রের নাম
ক্রয়ের যোগ্যতা

পাঁচ বছর মেয়াদী
বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র

ব্যক্তিপর্যায়ে:

প্রাপ্ত বয়¯‥ বাংলাদেশী নাগরিক একক বা যুগ্ম নামে।
প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে:

আয়কর বিধিমালা , ১৯৮৪ (অংশ-২)-এর বিধি ৪৯-এর উপ-বিধি(২) এ সংজ্ঞায়িত স্বীকৃত ভবিষ্যত
তহবিল এবং ভবিষ্য তহবিল আইন, ১৯২৫ (১৯২৫ সালের ১৯ নং আইন) অনুযায়ী পরিচালিত স্বীকৃত
ভবিষ্যত তহবিল এবং

আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪ এর ৬ষ্ঠ তফসিল এর পার্ট-এ এর অনুচ্ছেদ ৩৪ অনুযায়ী মৎস্য খামার, হাঁস-
মুরগীর খামার, পেলিটেড পোলট্রি ফিডস্্ উৎপাদন, বীজ উৎপাদন, স্থানীয় উৎপাদিত বীজ বিপণন, গবাদি
পশুর খামার, দুগ্ধ এবং দুগ্ধজাত দ্রব্যের খামার, ব্যাঙ উৎপাদন খামার, উদ্যান খামার প্রকল্প, রেশম
গুটিপোকা পালনের খামার, ছত্রাক উৎপাদন এবং ফল ও লতা পাতার চাষ হতে অর্জিত আয়-যা সংশ্লিষ্ট
উপ-কর কমিশনার কর্তৃক প্রত্যয়নকৃত।

পরিবার সঞ্চয়পত্র

১৮(আঠার) বছর বা তদূর্ধ্ব বয়সের যে কোন বাংলাদেশী নারী,

৬৫(পয়ষট্টি) বছর ও তদূর্ধ্ব বয়সের যে কোন বাংলাদেশী নাগরিক।

প্রাপ্ত বয়¯‥ শারীরিক প্রতিবন্ধী বাংলাদেশী নাগরিক। তবে শর্ত থাকে যে, প্রতিবন্ধীতার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট জেলা
সমাজসেবা কার্যালয় কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে।

তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্র

ব্যক্তিপর্যায়ে:

প্রাপ্ত বয়¯‥ বাংলাদেশী নাগরিক একক বা যুগ্ম নামে।
প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে:

অটিস্টিকদের জন্য প্রতিষ্ঠিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা যে সকল প্রতিষ্ঠান অটিস্টিকদের সহায়তায় কাজ করে।
তবে শর্ত থাকে যে, মুনাফার অর্থ অটিস্টিকদের সহায়তা কাজে ব্যয় হবে মর্মে সংশ্লিষ্ট জেলা সমাজ সেবা
অফিস হতে প্রত্যয়নকৃত হতে হবে।

পেনশনার সঞ্চয়পত্র

সরকারী, আধা-সরকারী, স্বায়ত্তশাসিত,আধা-স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের পিআরএল ভোগরত/ অবসরপ্রাপ্ত
চাকুরীজীবী;
ক্সুপ্রীম কোর্টের পিআরএল ভোগরত/ অবসরপ্রাপ্ত মাননীয় বিচারপতি,

সশস্ত্র বাহিনীর পিআরএল ভোগরত/ অবসরপ্রাপ্ত সদস্য এবং

উল্লিখিত ক্যাটাগরিতে অন্তর্ভূক্ত মৃত চাকুরীজীবীদের পারিবারিক পেনশন সুবিধাভোগী স্বামী/স্ত্রী/সন্তানগণ।

সঞ্চয়পত্র ক্রয় ফরমের সাথে কি কি কাগজপত্র প্রদান করতে হয় ?

  • ব্যক্তিপর্যায়ে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে:
  • ক) ক্রেতা ও নমিনি প্রত্যেকের ০২ (দুই) কপি করে পাসপোর্ট আকারের সত্যায়িত ছবি (নমিনির ছবি ক্রেতা কর্তৃক
  • সত্যায়িত);
  • খ) ক্রেতা ও নমিনির জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি (নমিনি নাবালক হলে তার জন্মনিবন্ধন এবং প্রত্যয়নকারীর জাতীয়
  • পরিচয়পত্রের কপি);
  • গ) ক্রেতা(গণ)-এর ঊ-ঞওঘ সার্টিফিকেটের কপি (বিনিয়োগের পরিমাণ ১.০০ (এক) লক্ষ টাকার বেশী হলে) ;
  • ঘ) গ্রাহকের নিজ ব্যাংক হিসাবের (যে হিসাবে সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও আসল ঊঋঞ-এর মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে জমা করাহবে)
  • চেক এবং সাদা চেকের কপি (একক নামে সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের ক্ষেত্রে একক নামের ব্যাংক হিসাবের
  • চেক অথবা যুগ্ম নামে সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের ক্ষেত্রে যুগ্ম নামের ব্যাংক হিসাবের চেক) এবং
  • ঙ) পেনশনার সঞ্চয়পত্রের ক্ষেত্রে নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ কর্তৃক পুরণকৃত প্রাপ্ত আনুতোষিক ও ভবিষ্য তহবিলের সনদপত্র
  • এবং চচঙ (চবহংরড়হ চধুসবহঃ ঙৎফবৎ)/ঊচচঙ(ঊষবপঃৎড়হরপ চবহংরড়হ চধুসবহঃ ঙৎফবৎ)-এর ফটোকপি
  • অথবা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদনকৃত পিএসপি-২ ফরম।
  • প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে:
  • ক) স্বীকৃত ভবিষ্য তহবিলের অর্থ বিনিয়োগের ক্ষেত্রে, সংশ্লিষ্ট কর কমিশনারের কার্যালয় কর্তৃক ইস্যুকৃত স্বীকৃতপত্র অথবা
  • ভবিষ্য তহবিল আইন, ১৯২৫ দ্বারা পরিচালিত ভবিষ্য তহবিলের অর্থ বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সরকার গেজেট
  • নোটিফিকেশন/প্রজ্ঞাপন, ভবিষ্য তহবিলের নামে ট্যাক্সপেয়ার আইডেনটিফিকেশন নম্বর (ঊ-ঞওঘ), পরিচালনা পর্যদের
  • সভার কার্যবিবরণী, লেনদেন পরিচালনাকারীদের স্বাক্ষর সংক্রান্ত প্রত্যয়ন, ভবিষ্য তহবিলের ব্যাংক হিসাব বিবরণী, উক্ত
  • হিসাবের গওঈজ চেক এবং গওঈজ সাদা চেকের কপি;
  • খ) আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪ এর ৬ষ্ঠ তফসিল এর পার্ট-এ এর অনুচ্ছেদ ৩৪ অনুযায়ী পরিচালিত প্রতিষ্ঠানের অর্থ
  • বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট উপ-কর কমিশনারের প্রত্যয়ন, পরিচালনা পর্যদের সভার কার্যবিবরণী, লেনদেন
  • পরিচালনাকারীদের স্বাক্ষর সংক্রান্ত প্রত্যয়ন, প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব বিবরণী , উক্ত হিসাবের গওঈজ চেক এবং
  • গওঈজ সাদা চেকের কপি এবং
  • গ) অটিস্টিকদের জন্য প্রতিষ্ঠিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা যে সকল প্রতিষ্ঠান অটিস্টিকদের সহায়তায় কাজ করে, সেসকল
  • প্রতিষ্ঠানের অর্থ বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সমাজসেবা জেলা কার্যালয় কর্তৃক প্রত্যয়নপত্র, পরিচালনা পর্যদের সভার
  • কার্যবিবরণী, লেনদেন পরিচালনাকারীদের স্বাক্ষর সংক্রান্ত প্রত্যয়ন, প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব বিবরণী, উক্ত হিসাবের
  • গওঈজ চেক এবং গওঈজ সাদা চেকের কপি।
সঞ্চয়পত্রের নতুন নিয়ম
সঞ্চয়পত্রের নতুন নিয়ম

দেখুনঃ

সঞ্চয়পত্রের নতুন নিয়ম দেখুন
সঞ্চয়পত্রের নতুন নিয়ম দেখুন

সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও মেয়াদপূর্তিতে আসল কিভাবে প্রদান করা হচ্ছে ?

উঃ সঞ্চয়পত্র বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান তথা বাংলাদেশ ব্যাংকের সকল অফিস, তফসিলী ব্যাংকের সকল শাখা, জাতীয় সঞ্চয়
ব্যুরো ও ডাকঘর হতে ক্রয়কৃত সকল প্রকার সঞ্চয়পত্রের আসল(মেয়াদপূর্তিতে)ও মুনাফা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্রেতা/ক্রেতাগণ-
এর ব্যাংক হিসাবে জমা করা হচ্ছে। মেয়াদপূর্তির পূর্বে ভাঙালেও আসল ও প্রাপ্য মুনাফা ক্রেতা/ক্রেতাগণ-এর ব্যাংক
হিসাবে জমা করা হবে। ০১/০৭/২০১৯ তারিখ হতে প্রাপ্য কোনো প্রকার অর্থ (মুনাফা ও আসল) নগদে প্রদান করা হচ্ছে
না।
৫. সঞ্চয়পত্র কখন ভাঙ্গালে মুনাফা পাওয়া যায় না ?
উঃ সকল প্রকার সঞ্চয়পত্রে ১ বছর পূর্তির পূর্বে নগদায়ন/ভাঙ্গালে কোন মুনাফা পাওয়া যায় না।
৬. সকল প্রকার সঞ্চয়পত্র কি পুনঃবিনিয়োগ যোগ্য ?
উঃ না, শুধুমাত্র পাঁচ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র পরবর্তী ১(এক) মেয়াদের জন্য স্বয়ংক্রিয় পুনঃবিনিয়োগযোগ্য।
পৃষ্ঠা ৭/৮
৭. সঞ্চয়পত্রের মুনাফার উপর উৎসে আয়কর কর্তন করা হয় কি-না ?
উঃ যখনই ক্রয় করা হোক না ক্রয়কৃত সকল প্রকার সঞ্চয়পত্রের মুনাফা প্রদান কালে নির্ধারিত হারে (মুনাফা থেকে) উৎসে
আয়কর কর্তন করা হয়। তবে সময়ে সময়ে জারীকৃত সরকারী নির্দেশনানুযায়ী উৎসে করের নির্ধারিত হার পরিবর্তন করা
হয়ে থাকে। বর্তমানে প্রযোজ্য উৎসে করের হার নি¤œরূপঃ
সঞ্চয়পত্রের নাম
পুঞ্জীভ‚ত বিনিয়োগ*
৫.০০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত
পুঞ্জীভ‚ত বিনিয়োগ ৫.০০ লক্ষ টাকার বেশি
পাঁচ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র,পরিবার
সঞ্চয়পত্র এবং তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক
সঞ্চয়পত্র
৫%
১০%
*পুঞ্জীভ‚ত বিনিয়োগ বলতে পাঁচ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র, পরিবার সঞ্চয়পত্র ও তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক
সঞ্চয়পত্রের সর্বমোট স্থিতিকে বুঝাবে।
সঞ্চয়পত্রের নাম
বিনিয়োগ ৫.০০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত
বিনিয়োগ ৫.০০ লক্ষ টাকার বেশি
পেনশনার সঞ্চয়পত্র
০%
১০%
ঙ. নমিনি
১. সঞ্চয়পত্রে নমিনি করার প্রয়োজনীয়তা কি?
উঃ ভবিষ্যতে সঞ্চয়পত্রের ক্রেতা/মালিক মারা গেলে আসল ও মুনাফা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে ঝামেলা এড়াতে সঞ্চয়পত্র ক্রয়কালে
ক্রয় ফরমে এক বা একাধিক (সর্বোচ্চ তিন জন পর্যন্ত) ব্যক্তিকে অথবা কোন একটি প্রতিষ্ঠানকে শতকরা হারে নমিনি
মনোনয়ন করা বাঞ্ছনীয়।
২. নাবালক/নাবালিকাকে নমিনি করা যায় কি ?
উঃ হ্যাঁ, করা যায়।
৩. সঞ্চয়পত্রের মূল মালিক মারা গেলে কে ভাঙ্গাতে পারবে ?
উঃ নমিনি। নমিনি উল্লেখ না থাকলে আইনানুগ ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তি/ ব্যক্তিবর্গ।
৪. নমিনি না করে সঞ্চয়পত্রের ক্রেতা/মালিক মারা গেলে, কে এগুলো ভাঙ্গাতে/নগদায়ন করতে পারবে ?
উঃ ক্রেতা বা মালিকের মৃত্যুর তিন মাসের মধ্যে কোর্ট হতে ঝঁপপবংংরড়হ ঈবৎঃরভরপধঃব সংগ্রহ করতে হবে। এ বিষয়ে
সরকার অনুমোদিত বা প্রদত্ত আইনানুগ ক্ষমতা প্রাপ্ত ব্যক্তি/উত্তরাধিকারী(ঝঁপপবংংড়ৎ) এগুলো ভাঙ্গাতে পারবে।
৫. বিনিয়োগকারী ও নমিনি উভয়ে মারা গেলে কে ভাঙ্গাতে পারবে ?
উঃ ঝঁপপবংংরড়হ ঈবৎঃরভরপধঃব-এর বিপরীতে আইনানুগ উত্তরাধিকারী ভাঙ্গাতে পারবে।
চ. বিবিধ
১. সঞ্চয়পত্র কোথায় ভাঙ্গানো/নগদায়ন করা যায় ?
উঃ বর্তমানে ক্রয়কৃত সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও আসল মেয়াদপূর্তিতে গ্রাহকের ব্যাংক হিসাবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঊঋঞ-এর
মাধ্যমে জমা করা হচ্ছে। মেয়াদপূর্তির পূর্বে সঞ্চয়পত্র নগদায়নের প্রয়োজন হলে যে অফিস থেকে সঞ্চয়পত্র ক্রয় করা হয়,
পৃষ্ঠা ৮/৮
সেখানে ক্রেতাকে নিজে উপস্থিত হয়ে আবেদন করতে হবে। আবেদনের সাথে ক্রেতার ০১(এক) কপি পাসপোর্ট ছবি,
জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি ও সিস্টেম হতে সরবরাহকৃত সঞ্চয়পত্রের মূল কপি জমা দিতে হবে।
২. সঞ্চয়পত্র স্থানান্তর (ঞৎধহংভবৎ) করা যায় কিনা ?
উঃ হ্যাঁ, ০৩/০২/২০১৯ তারিখের পূর্বে ক্রয়কৃত সঞ্চয়পত্র ইস্যু অফিসের শাখাসমূহে রেজিস্ট্রেশন স্থানান্তর করা যায়।
৩. সঞ্চয়পত্র হারালে, চুরি হলে, পুড়ে গেলে, নষ্ট হলে কি হবে ?
উঃ প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্নের পর “ডুপ্লিকেট” সঞ্চয়পত্র পাওয়া যাবে।
৪. সঞ্চয়পত্র লিয়েন করে বা জামানত রেখে ব্যাংক ঋণ নেয়া যায় কিনা ?
উঃ না, সঞ্চয়পত্র লিয়েন করে বা জামানত রেখে ব্যাংক ঋণ নেয়া যায় না।
৫. ক্রয়সীমার অতিরিক্ত বিনিয়োগ করা হলে করণীয় কি ?
উঃ বিনিয়োগকারী ক্রয়সীমার অতিরিক্ত বিনিয়োগের উপর কোনো মুনাফা প্রাপ্য হবেন না; তাৎক্ষণিকভাবে ক্রেতা
সীমাতিরিক্ত সঞ্চয়পত্র নগদায়নপূর্বক মূল অর্থ ফেরত নিতে বাধ্য থাকিবেন।
৬. বিনিয়োগকারীর মনোনীত ব্যক্তি মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের মুনাফা উত্তোলন করতে পারবেন কি-না ?
উঃ “জাতীয় সঞ্চয়¯ি‥ম অনলাইন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম” প্রবর্তন হওয়ার পূর্বে ক্রয়কৃত সঞ্চয়পত্রের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীর
মনোনীত ব্যক্তি মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের মুনাফা উত্তোলন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে, বিনিয়োগকারীকে
অঁঃযড়ৎরংধঃরড়হ খবঃঃবৎ এর মাধ্যমে মনোনীত ব্যক্তির স্বাক্ষর সত্যায়নপূর্বক আবেদন করতে হবে। তবে সঞ্চয়পত্রের
আসল অর্থ কোনোক্রমেই অঁঃযড়ৎরংধঃরড়হ খবঃঃবৎ-এর মাধ্যমে প্রদানযোগ্য নয়। “জাতীয় সঞ্চয়¯ি‥ম অনলাইন
ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম” এ সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও মেয়াদপূর্তিতে আসল ঊষবপঃৎড়হরপ ঋঁহফ ঞৎধহংভবৎ(ঊঋঞ)-এর
মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিনিয়োগকারীর হিসাবে জমা হয় বিধায় বিনিয়োগকারী বা তার মনোনীত ব্যক্তির সঞ্চয়পত্রের
মুনাফা ও মেয়াদপূর্তিতে আসল উত্তোলনের জন্য ইস্যু অফিসে আসার প্রয়োজন নেই।